রেসপেক্ট সিনিয়র কেয়ার রাইডার: 9152007550 (মিসড কল)

সেলস: 1800-209-0144 সার্ভিস চ্যাট: +91 75072 45858

ইংরেজি

Claim Assistance
Get In Touch
5 reasons why you should add white chocolate to your diet
সেপ্টেম্বর 22, 2018

কেন হোয়াইট চকলেট খাবেন, তার 5টি কারণ জেনে নিন

হোয়াইট চকলেট মিল্ক সলিড, কোকো বাটার এবং চিনি দিয়ে তৈরি করা হয়. এখানে থাকে বিশুদ্ধ কোকো বাটার, যা আপনার হোয়াইট চকলেট বারকে স্বাস্থ্যকর বানিয়ে দেয়. বিশুদ্ধ কোকো বাটারে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে, যা আপনার শরীরের পক্ষে ভালো. এছাড়াও এই চকলেটে দুধের উপস্থিতি একে ক্যালসিয়ামে সমৃদ্ধ করে তোলে, যা আপনার শরীরের হাড়ের জন্য উপকারী. হোয়াইট চকলেটের উপকারিতা ডার্ক চকলেটের তুলনায় কম, কিন্তু, যদি আপনি হোয়াইট চকলেট খেতে পছন্দ করেন, তাহলে এর স্বাদ নেওয়া থেকে নিজেকে বঞ্চিত করা উচিত হবে না. তবে আপনাকে এর পুষ্টিগত তত্ত্ব সম্পর্কে জানার জন্য প্যাকেজিং চেক করতে হবে এবং নিশ্চিত করতে হবে যেন চকলেটের উপাদানে অবশ্যই কোকো বাটার থাকে এবং এর মধ্যে পাম অয়েল থাকা উচিত নয়. পাম অয়েল হল কোকো বাটারের একটি অস্বাস্থ্যকর বিকল্প, কারণ এতে ট্রান্স-ফ্যাট থাকে. স্বল্প পরিমাণে খেলে হোয়াইট চকলেটের উপকারিতা পাওয়া যায়. জ্ঞানীরা বলেন যে, কোনও কিছু অতিরিক্ত এবং শূন্য পরিমাণে ভালো নয়. যখন আপনি নির্দিষ্ট সীমা মেনে হোয়াইট চকলেট খান, তাহলে এতে নিম্নলিখিত স্বাস্থ্যের উপকারিতাগুলি পাওয়া যাবে:
  • ইমিউনিটি বাড়ানো – যেহেতু হোয়াইট চকলেটে কোকো বাটার থাকে, তাই এটি হল অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের একটি সমৃদ্ধ উৎস, যা আপনার শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে সাহায্য করে. এটি শ্বেত রক্তকণিকার গতিবিধির নমনীয়তা বাড়িয়ে তোলে এবং এর ফলে ধমনীতে রক্ত জমাট বাধার প্রবণতা বন্ধ করতে সাহায্য করে. সেপ্সিস হলে হোয়াইট চকলেটে উপস্থিত ভাল ব্যাক্টেরিয়াগুলি খারাপ ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে লড়তে সাহায্য করে.
  • কোলেস্টেরল কমিয়ে দেয় – সীমিত পরিমাণে হোয়াইট চকলেট খেলে তা আপনার শরীরে মেদ নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করতে পারে, যা খারাপ কোলেস্টেরলের স্তর হ্রাস করতে পারে. এর ফলে আপনার হার্ট সুস্থ থাকবে এবং করোনারি হার্টের রোগের ঝুঁকি কমে যাবে.
  • লিভারের স্বাস্থ্য উন্নত করা – বিভিন্ন পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে, আপনার শরীরে রক্তের প্রবাহ বাড়ানোর মাধ্যমে হোয়াইট চকলেটে লিভারের স্বাস্থ্য উন্নত করতে পারে. এটি ক্ষতিগ্রস্ত টিস্যু পুনরুদ্ধার করার প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে.
  • ব্লাড সুগার লেভেল উন্নত করা – হোয়াইট চকলেটে চিনির উপস্থিতি সেই সমস্ত রোগীদের পক্ষে উপকারি যাঁদের শরীরে হাইপোগ্লাইসেমিয়া, রক্তে গ্লুকোজের অভাব রয়েছে.
  • হাইপারটেনশন এবং শ্বাসকষ্ট কমাতে সাহায্য করা – হোয়াইট চকলেটে লিনোলিক অ্যাসিড থাকে, যা হাইপারটেনশন এবং মিথাইলক্স্যান্থিন রোধ করতে সাহায্য করে, যা শ্বাসযন্ত্রের পেশীগুলিকে শিথিল করতে সাহায্য করে.
উপরে উল্লিখিত সুবিধাগুলি ছাড়াও, হোয়াইট চকলেট মাথাব্যথা, নিদ্রাহীনতা, স্তন ক্যান্সার, আর্থারাইটিস, ডিমেনশিয়া ইত্যাদি রোগের ক্ষেত্রেও উপকারি. আপনাকে শুধু সাবধান থাকতে হবে যে, আপনি একবারে কতটা পরিমাণ হোয়াইট চকলেট খাচ্ছেন এবং এটি প্রায়শই খাওয়া উচিত নয়. পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে যে, আপনি একবার শুধুমাত্র 1-আউন্স পরিমাণ হোয়াইট চকলেট খান এবং এর দারুণ স্বাদ উপভোগ করুন. আরেকটি জিনিস, যা আপনাকে কখনও ভুলে যাওয়া উচিত নয় হেলথ ইনস্যুরেন্স নিজের এবং আপনার পরিবারের জন্য, যাতে আপনি যে কোনও ধরনের চিকিৎসা সংক্রান্ত জরুরি অবস্থার মতো গুরুত্বপূর্ণ সময়ে কভার পেতে পারেন.

এই প্রবন্ধটি কি সহায়ক ছিল? একে রেটিং দিন

গড় রেটিং 3.9 / 5 ভোটের সংখ্যা: 44

এখনও পর্যন্ত কোনও ভোট নেই ! প্রথম ব্যক্তি হিসেবে এই পোস্টে রেটিং দিন.

এই প্রবন্ধটি পছন্দ?? আপনার বন্ধুদের সাথে এটি শেয়ার করুন!

আপনার ভাবনা শেয়ার করুন. নীচে একটি কমেন্ট লিখুন!

একটি উত্তর দিন

আপনার ইমেল অ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না. সমস্ত ক্ষেত্র প্রয়োজনীয়